কে হচ্ছেন উত্তর-পূর্ব ভারতের তৃতীয় আমীরে শরিয়ত? মৌলানা ইউসুফ কেন নয়?

0
ছবি : সংগৃহিত
এ কে বড়ভুইয়া, তরঙ্গ বার্তা, গুমড়া : উত্তর-পূর্ব ভারতের দ্বিতীয় আমীরে শরিয়তের প্রয়াণের পর তৃতীয় আমীরে শরিয়ত নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি বিভিন্ন কারণে। আমীরে শরিয়তের প্রয়াণের দিন তৃতীয় আমীরে শরিয়ত নির্বাচিত করার দিন ধার্য করা হয়েছিল আগামী ২১মার্চ।
সে মর্মে আজ (বৃহস্পতিবার ) বদরপুর আলাকুলিপুর মসজিদে সমবেত হচ্ছেন উত্তর-পূর্ব ভারতের ৬৭১ জন আরবাবে হল্লে অল আক্বদের সদস্যবৃন্দ। এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি তথা পর্যবেক্ষক হিসাবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল বিহার-উড়িষ্যার আমীরে শরিয়ত মৌলানা ওলিউল্লাহ রহমানী সাহেব। কিন্তু শুনা যাচ্ছে তিনি আসছেন না, আসতে পারেন তাঁর প্রতিনিধি।
তবে আসার কথা রয়েছে লখনৌ থেকে ফেক্বাহ একাডেমী অব ইণ্ডিয়ার সাধারণ সম্পাদক মৌলানা খালেদ ছয়ফুল্লাহ। বাতাসে উড়ছে এমন খবরও। অনুষ্টানে থাকবেন নদওয়ার শীর্ষস্থরের সব পদাধিকারী ও উলাময়ে কেরামগণ।
এদিকে, কে হচ্ছেন উঃপূর্ব ভারতের তৃতীয় আমীরে শরিয়ত? এ নিয়ে জল্পনা কল্পনা শুরু হয়েছে আমীরে শরিয়তের প্রয়াণের পর থেকে। অনেকে নিজের মতামতও সোস্যাল মিডিয়ায়ও তুলে ধরছেন। এই ক্ষেত্রে অনেকে যোগ্য ব্যক্তিকে তুলে ধরার চেষ্টা করলেও অনেকে আবার এই পদ মর্যাদার তোয়াক্কা না করে নিজের পছন্দের অযোগ্য ব্যক্তির নাম তুলে ধরে যোগ্য ব্যক্তিকে আড়াল করার চেষ্টা করছেন বলে বাতাসে উড়ছে সমালোচনা।
এ পর্যন্ত বরাকের তিন জেলার বিশিষ্ট নদওয়া কর্মী তথা বিশিষ্ট উলামায়ে কেরাম এবং ৭০ শতাংশ নদওয়া সমর্থকের মতে, এই মুহুর্তে আমীরে শরিয়তের মত মর্যাদাসম্পন্ন আসনে যোগ্য ব্যক্তি উত্তর-পূর্ব ভারতের কেন্দ্রীয় ক্বাজীয়ে শরিয়ত তথা প্রাক্তন শেখ‌-উল হাদিস মৌলানা ইউসুফ আলী সাহেব। তাদের মতে, দীর্ঘ দিন থেকে নদওয়ার গুরুত্বপূর্ণ কাজসহ মরহুম প্রথম ও দ্বিতীয় আমীরে শরিয়তের জীবদ্দশায় তাদের যাবতীয় বড় মাপের কাজের দায়িত্ব সামলেছিলেন মৌলানা ইউসুফ।
তাছাড়া, যেখানে আমীরে শরিয়তের অবর্তমানে তারই নির্দেশে আমীরে শরিয়তের বিভিন্ন কাজ সমাধা করেন তিনিই। এটাই হচ্ছে তৃতীয় আমীরে শরিয়ত নির্বাচিত করার পরোক্ষ ইশারা মৌলানা ইউসুফের দিকে। শুধু এখানেই শেষ নয়, এই মুহুর্তে সব দিক দিয়ে মৌলানা ইউসুফ আলীর সমকক্ষ নদওয়া সংগঠনে কেহ নেই। যারা আছেন, তাদের কেউ বিতর্কিত। অন্যরা আন্তর্জাতিক স্তরে যেমন অখ্যাত, তেমন বরাকেও অপরিচিত। আমীরে শরিয়তের মত গুরুত্বপূর্ণ পদ সামলানোর ক্ষমতা নেই তাদের, এমন মন্তব্য অনেকের।
এদিকে আমীরে শরিয়ত নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে বরাকের তিন জেলায় অতি গোপনে লবিবাজি শুরু হয়েছে বলে শুর উঠছে। যার জন্য তৃতীয় আমীরে শরিয়ত নির্বাচন করার ক্ষেত্রে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।
জানা গেছে, করিমগঞ্জের কয়েকজন নদওয়া কর্মী চাইছেন করিমগঞ্জ থেকে তৃতীয় আমীরে শরিয়ত নির্বাচিত করতে। হাইলাকান্দির কিছু নদওয়া কর্মী চাইছেন হাইলাকান্দি থেকে তৃতীয় আমীরে শরিয়ত নির্বাচিত করতে। এসব কথা শুনা যাচ্ছে বরাকের বিভিন্ন নদওয়া কর্মীদের মুখে।
যদি একথাগুলি সত্য হয়, তাহলে তা হবে নদওয়া সংগঠনকে পরোক্ষে ধ্বংস করার একটি গোপন ষড়যন্ত্র। আর যদি এমনটা হয় তাহলে মানবে না নদওয়ার সাধারণ কর্মীরা, দেখা দেবে বিতর্ক। আসলে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে, তাদের থেকে অনেক উপরে রয়েছেন মৌলানা ইউসুফ।
অন্যদিকে, আমীরে শরিয়ত নির্বাচিত করতে কোনো সমস্যার সৃষ্টি হলে এইক্ষেত্রে নদওয়া কর্মীদের মুখে শুনা যাচ্ছে আরেক পরামর্শমূলক মন্তব্য। তা হলো, সংগঠনকে বাচিয়ে রাখতে বিভিন্ন মতামতকে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় আমীরে শরিয়তের সুযোগ্য উত্তরাধিকারী মৌলানা আবুল খয়েরকে তৃতীয় আমীরে শরিয়ত মনোনীত করে সব বিতর্কে জল ঢেলে সমস্যার সমাধান করা। এই ক্ষেত্রে বাচবে নদওয়া। অন্যতায় আমীরে শরিয়ত মনোনীত করতে তোড়জোড় হলে সংগঠনের সমাপ্তি হবে এদিনই।
খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here