ত্রিপুরায় প্রধানমন্ত্রীর সফরে বিরোধি দলের বিক্ষোভ, উড়ালেন কালো বেলুন

0
ছবি : নিজস্ব
নিয়াজ আহমদ, তরঙ্গ বার্তা, আগরতলা : নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যুতে গোটা উত্তর পূর্বাঞ্চল যখন উত্তপ্ত, তখন শনিবার ত্রিপুরা রাজ্যে এসে এই ইস্যুতে একবারের জন্যও মুখ খুললেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷
এমনকী ২০১৪ সালে মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে গৃহীত কর্মসূচীগুলিকে বাদ দিলে অন্য কোনও ইস্যুতেই গেলেন না মোদি৷ যদিও এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যুতে এদিন মোদির সভা বয়কট করে জনজাতি ভিত্তিক একাধিক রাজনৈতিক সংগঠন৷
কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মোদিকে কালো পতাকা দেখানোর সুযোগ না পেয়ে কংগ্রেস ভবনের সামনেই দলের পক্ষ থেকে এদিন কালো পতাকা এবং শয়ে শয়ে কালো বেলুন উড়িয়েছে কর্মী সমর্থকরা৷ বিকাল প্রায় চারটার পর কর্মী সমর্থকরা একটি মিছিল করে বিক্ষোভ প্রদর্শনের জন্য সমবেত হতে শুরু করে৷ বিক্ষোভ মিছিলে শুরুতে বাধা দেয় পুলিশ৷ পরে সেই বিক্ষোভই দলের রাজ্য কার্য্যালয়ের সামনে দেখালো কর্মীরা৷ সেই সাথে মোদিকে উদ্দেশ্য করে কড়া ভাষায় আক্রমণাত্মক শ্লোগানও তোলে কর্মীরা৷
অন্যদিকে মহারাজা প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মন এসব কিছু না জানালেও তার বাসভবনের এলাকা থেকে বেশ কিছু কালো বেলন উড়িয়েছে৷ কে বা কারা এসব ঘটনা ঘটিয়েছে মহারাজা এসম্পর্কে অবগত নন বলেই জানালেন শনিবার রাতে৷
এদিকে, এমবিবি বিমানবন্দরে মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মাণিক্য বাহাদুরের পূর্ণাবয়ব মূর্তির আবরণ উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ অথচ রাজন্য স্মৃতি বিজড়িত এমন অনুষ্ঠানেও এদিন উপস্থিত ছিলেন না রাজ পরিবারের কেউই৷
মহারানী বিভূকুমারী দেবীকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও তিনি আগরতলাতেই উপস্থিত নেই৷ মহারাজা প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মন যেহেতু সরকারের বিরুদ্ধে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যুতে সুড় চড়াচ্ছেন সম্প্রতি সেজন্য তাঁকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি৷
শনিবার যখন মহারাজার পূর্ণাবয়ব মূর্তির আবরণ উন্মোচন করা হচ্ছিল এমবিবি বিমানবন্দরে তখন ঘরে বসে এই দুঃখের কথাই জানালেন তিনি৷
প্রদ্যুৎ কিশোর এদিন বললেন, আমন্ত্রণ জানানো হলে নিশ্চয়ই উপস্থিত থাকতাম৷ যে ইস্যুতে তিনি সম্প্রতি সুড় চড়াচ্ছেন, তাতে এরাজ্যে জাতি উপজাতির মধ্যে বিভেদ তৈরী করবে বলেও ফের আরও একবার মনে করলেন৷
সার্বিকভাবে এই একটি বিষয়কে বাদ দিলে লোকসভা নির্বাচনের আগে মোদির সভা কিন্তু এদিন কোনও অংশেই কম যায়নি৷ তবে, কোনও কোনও ক্ষেত্রে সরকারিভাবে রাজ্যের স্কুলগুলিতে নোটিশ জারি করিয়ে শিক্ষক শিক্ষিকাদের সভায় উপস্থিত থাকতে বাধ্য করানোর অভিযোগও ছিল৷
কিছু কিছু স্কুলে এদিন সরস্বতী পূজার আয়োজন করা হয়েছিল পূর্ব নির্ধারিত ভাবে৷ কিন্তু, মোদির সভায় যোগ দেওয়ার নির্দেশ পেয়ে পুজার আয়োজন পিছিয়ে রবিবার করা হয়েছে বলেও জানা গেছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here