তাবরেজ আনসারীকে পিটিয়ে হত্যা, অপরাধীদের শাস্তির দাবিতে আন্দোলনে এসআইও

0

তরঙ্গ বার্তা ডেস্ক : তাবরেজ আনসারীকে পিটিয়ে হত্যার তীব্র নিন্দা জানালো ছাত্র সংগঠন এসআইও। বৃহস্পতিবার অপরাধীদের শাস্তির দাবিতে আন্দোলনে নামে সংগঠনের পশ্চিমবঙ্গ শাখা। ঘটনার প্রতিবাদে ধর্মতলায় এক মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন এসআইও’র রাজ্য সভাপতি ওসমান গনি, সম্পাদক শেখ ইমরান, ক্যাম্পাস সেক্রেটারি ইমরান হোসেন, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় পরামর্শ পরিষদের সদস্য সাদাব মাসুম সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক ঝাড়খণ্ডের খারসাওয়ান এলাকায় মোটর বাইক চুরির অভিযোগ তুলে তাবরেজ আনসারি নামের ২৪ বছরের এক যুবককে লাইট পোষ্টের সাথে বেঁধে বেধড়ক মারধোর করা হয়েছে এবং তাঁকে ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি দিতে বলে অকথ্য অত্যাচার করা হয়েছে। পরে পুলিশ হেফাজতেই মৃত্যু হয় তাবরেজ আনসারীর। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের বুকে চলন্ত ট্রেনে মহম্মদ শাহরুখ হালদার সহ আরো দুইজনকে ‘জয় শ্রী রাম’ বলতে চাপ দেওয়া হয়।

মহম্মদ শাহরুখ হালদার ‘জয় শ্রী রাম’ বলতে অস্বীকার করায় চরম হেনস্থা করা হয়েছে এবং ট্রেন থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়াও হয়েছে। স্টুডেন্টস ইসলামিক অর্গানাইজেশন অফ ইন্ডিয়া’র পশ্চিমবঙ্গ শাখার পক্ষ থেকে এই দুটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে ধর্মতলায় একটি শান্তিপূর্ণ মানব বন্ধন গড়ে তোলা হয়। এই মানব বন্ধনে সংগঠনের রাজ্য সভাপতি ওসমান গনি দুটি ঘটনার নিন্দা করে বলেন, “বর্তমানে সারা দেশে ‘জয় শ্রী রাম’-এর নামে পিটিয়ে হত্যা অতি সাধারন ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গের বুকেও এই ধর্মীয় উগ্রতা ছড়িয়ে পড়ছে।

ঝাড়খণ্ডের তাবরেজ আনসারীকে হত্যা কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয় বরং উগ্র হিন্দুত্ববাদের অংশ। তিনি আরও বলেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বারংবার ঘটে চলা ‘মব লিঞ্চিং’-এ জড়িত দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না দেওয়ার জন্য এই অপরাধ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই কেন্দ্র সরকারের উচিত কঠোর আইন তৈরি করে এই ঘটনা রোধ করা”।

সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক মোঃ ইমরান আলি বলেন, “সম্প্রীতির দেশ এই ভারতবর্ষ। কিন্তু বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ সহ সারা দেশে সাম্প্রদায়িক বিভেদের বিষবাষ্প ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। যার ফলেই তাবরেজ আনসারীকে হত্যা করা হল এবং সকলের সামনে মহম্মদ শাহারুখ হালদারকে হেনস্থার স্বীকার হতে হয়েছে।” এই মানব বন্ধনে উপস্থিত জামায়াতে ইসলামি হিন্দের রাজ্য পরামর্শ পরিষদের সদস্য সাদাব মাসুম বলেন বলেন, “দেশে ঘটে চলা পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। মুসলিম ও দলিতদেরকে জয় শ্রী রাম বলতে বাধ্য করে বেধড়ক মারধোর করা হচ্ছে যা খুবই ন্যাক্কারজনক ঘটনা।” তিনি সমস্ত দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ধর্মীয় উগ্রতাকে প্রতিরোধ করতে এবং সম্প্রীতি বজায় রাখতে আহ্বান করেন”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here