পরম্পরা ভাঙল শিবসেনা, জামায়াতে ইসলামীর ডাকা CAA-NRC বিরোধী সমাবেশে যাচ্ছেন সঞ্জয়

0

তরঙ্গ বার্তা ডিজিটাল ডেস্ক: এনডিএ জোট থেকে বেরিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে কি হিন্দুত্ববাদের মোটা খোলসটাও ছাড়তে চাইছে শিবসেনা? এই প্রশ্নটাই উঠে আসছে মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক ময়দান থেকে। কেননা এবার জামাত-এ-ইসলামি হিন্দের সিএএ ও এনআরসি বিক্ষোভে অংশ নিতে চলেছেন শিবসেনার সেকেন্ড ইন কমান্ড সঞ্জয় রাউত।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি-র বিরুদ্ধে দেশজুড়ে জারি রয়েছে বিক্ষোভ ও আন্দোলন। বিশেষত ভারতীয় মুসলিম সংগঠনগুলিই সরব হয়েছে এই জোড়া ফলার বিরুদ্ধে। এই অবস্থায় শনিবার মুম্বইয়ে এক বিক্ষোভ প্রদর্শন আয়োজন করেছে জামাত-এ-ইসলামি হিন্দ। এতে শামিল হবেন শিবসেনার অন্যতম বরিষ্ঠ নেতা এবং রাজ্যসভার সাংসদ সঞ্জয় রাউত। জামাত, মারাঠি সাংবাদিক সংগঠন এবং এপিসিআর (অ্যাসোসিয়েশন অব প্রোটেকশন অব সিভিল রাইটস) এক সঙ্গে এই কর্মসূচিত আয়োজন করেছে।

জামাতের মুম্বই শাখার সভাপতি সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন যে সামনার সম্পাদক তথা শিবসেনা নেতা সঞ্জয় সিএএ ও এনআরসি বিরোধী এই সমাবেশে শামিল হওয়ার আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। তিনি ওই প্রদর্শনে উপস্থিত থাকবেন বলেও জানিয়েছেন। সঞ্জয় রাউত ছাড়াও বম্বে হাইকোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি বিজি কোলসে পাটিল, বরিষ্ঠ আইনজীবী মিহির দেশাইও উপস্থিত হয়ে বিরোধ জানাবেন।

তবে এই অনুষ্ঠানে মূল প্রচারের আলো কেড়ে রেখেছেন শিবসেনার সঞ্জয় রাউতই। কেননা নাগরিকত্ব বিল নিয়ে লোকসভায় আলোচনা চলাকালীন এর সমর্থনে ভোট দিয়েছিল সেনা। এতে মহারাষ্ট্রে সেনা শরিক এনসিপি ও কংগ্রেসের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়। রাজ্যসভায় বিল নিয়ে আলোচনা চলার সময় ভোটাভুটিতে অংশ না নিয়েই কক্ষ ত্যাগ করেন সেনা সাংসদরা। এরপরই এনআরসি নিয়ে বেঁকে বসেন উদ্ধব ঠাকরেও। মহারাষ্ট্রে তা লাগু করতে দেওয়া হবে না বলে জানান তিনি।

তবে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে নিজের সাসপেন্স বজায় রেখেছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশের অপেক্ষা করবেন বলে জানিয়েছেন। ইতিমধ্যে সুপ্রিম কোর্ট এই আইনের বিরুদ্ধে একাধিক আবেদন দায়ের করে রেখেছেন বিরোধীরা। জানুয়ারি মাসেই যার শুনানি হতে পারে। তাই সিএএ নিয়ে ধীরে চলো গতি নিয়েছেন উদ্ধব। উল্টো দিকে সঞ্জয় রাউত অবশ্য প্রথম থেকেই সিএএ ও এনআরসি-র বিরুদ্ধে খড়্গহস্ত থেকেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here