আগরতলায় বিভিন্ন স্থানে রিক্সা চালকদের রাস্তা অবরোধ, ভাঙচুর

0
ছবি : সংগৃহিত
নিয়াজ আহমদ, তরঙ্গ বার্তা, আগরতলা : ত্রিপুরা হাইকোর্ট প্যাডেল চালিত রিক্সায় মোটর বেআইনী ঘোষণা করেছে৷ বৃহস্পতিবার সকালে ট্রাফিক পুলিশ আগরতলায় কয়েকটি প্যাডেল রিক্সা থেকে মোটর খুলে নেয়৷ আর তাতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন রিক্সা চালকরা৷ প্যাডেল রিক্সা থেকে মোটর খুলে নেওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ রিক্সা চালকরা রাজধানী আগরতলায় বেশ কয়েকটি স্থানে অবরোধ ও ভাঙচুর চালিয়েছে৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এদিন বিভিন্ন স্থানে পুলিশ ও টিএসআর বাহিনীকে মোতায়েন করা হয়৷
বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ১০টা থেকেই আগরতলায় বিভিন্ন স্থানে রিক্সা চালকরা রাস্তা অবরোধ করেন৷ প্যালেড রিক্সা থেকে মোটর খুলে নেওয়ার প্রতিবাদেই তারা রাস্তা অবরোধ করেছে বলে জানিয়েছেন৷ এদিন রিক্সা চালকরা রাধানগর, উত্তর গেইট, বটতলা, ঝুলন্ত ব্রিজ, পুরাতন মোটর স্ট্যান্ড এবং প্যারাডাইস চৌমুহনীতে রাস্তা অবরোধ করেছে৷ দীর্ঘ সময় অবরোধের কারণে পথ চলতি মানুষরা হয়রানির শিকার হয়েছেন৷
অভিযোগে জানা গেছে, সাধারণ মানুষ অবরোধ চলাকালীন রিক্সা চালকদের রক্ত চক্ষুর মুখে পড়েছিলেন৷ শুধু তাই নয়, রিক্সা চালকরা লক্ষ্মী নারায়ণ মন্দির সংলগ্ন স্থানে একটি পুলিশের গাড়িতে ভাঙচুর চালিয়েছে৷ গাড়ির চালক কোনও মতে নিজেকে তাদের হাত থেকে রক্ষা করেছেন৷ ঝুলন্ত ব্রিজে অবরোধ চলাকালীন দুই ট্রাফিক কনস্টেবলকে মারধরেরও ঘটনা ঘটেছে৷
এই অবরোধের ঘটনায় পুলিশ প্রশাসন তাদের বুঝিয়ে কয়েকটি স্থান থেকে অবরোধ প্রত্যাহার করাতে সক্ষম হলেও প্যারাডাইস চৌমুহনীতে দীর্ঘ সময় রাস্তা অবরোধ করে রাখেন রিক্সা চালকরা৷
তাদের বক্তব্য, এই ভাবে প্যালেড রিক্সা থেকে মোটর খুলে নিয়ে তাদের রোজগারে আঘাত আনা হয়েছে৷ রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপ তারা কোনও ভাবেই মেনে নেবেন না৷ এদিন তারা দীর্ঘ সময় পুর নিগমের অফিস ঘেরাও করে রাখেন৷ শেষে পুর কমিশনার তাদের মধ্যে পাঁচ জনকে ডেকে নিয়ে আলোচনা করেন৷ জানা গেছে, পুর কমিশনার রিক্সা চালকদের জানিয়েছেন রাজ্য সরকার তাদের প্রতি যথেষ্ট সংবেদনশীল৷
কোনও রিক্সা চালকের ক্ষতি হোক তা রাজ্য সরকার চাইছে না৷ পুর কমিশনার রিক্সা চালকদের আশ্বাস দিয়েছেন, ৫ মার্চের আগে এ ধরনের কোনও অভিযান হবে না৷ পাশাপাশি তিনি রিক্সা চালকদের শান্তি বজায় রাখার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন৷ পুর কমিশনারের আশ্বাসের ভিত্তিতে এদিনের মতো আন্দোলনে থেকে সরে আসেন রিক্সা চালকরা৷
এদিকে, মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব এদিনের ঘটনার পেছনে ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে দাবি করেন৷ তাঁর কথায়, রাজ্য সরকার কোনও রিক্সা চালকের ক্ষতি হোক তা চাইছে না৷ হাইকোর্টের রায়ে প্যাডেল রিক্সায় মোটর লাগানো নিষিদ্ধ হয়েছে৷ তা সত্বেও রাজ্য সরকার তাদের প্রতি যথেষ্ট সংবেদনশীল৷
অন্যদিকে, অনুমতি ছাড়া প্যাডেল রিক্সা থেকে মোটর খুলে নেওয়ায় ইন্সপেক্টর সুরেশ দেববর্মা এবং সাব ইন্সপেক্টর চন্দ্র শেখর বণিককেও শোকজ করা হয়েছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here