এনআরসিতে অবৈধ আপত্তির বিরোদ্ধে সচেতনতা ও মানবিক আবেদন

0
বিভিন্ন মাধ্যম থেকে পাওয়া খবরানুযায়ী, সম্পুর্ণ প্রতিহিংসা মুলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আসামের উগ্র জাতিয়তাবাদি ভাষিক ছাত্র সংস্থা, ধর্মীয় উগ্রপন্থী সংস্থা ও ধর্মীয় জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক দলের সন্ত্রাসীরা বৈধ ভারতীয় ভাষিক ও ধর্মীয় সংখ্যালঘু জনগণের নাম এনার্সি থেকে বাতিল করানোর জন্য আপত্তি করেছে। মাধ্যম গুলির মতে শুধুমাত্র শেষ দিনে জমা পড়া আপত্তি পত্র আড়াই লক্ষের উপরে এবং ৫/৬ লক্ষ বৈধ ভারতীয়দের বিরোদ্ধে আপত্তি করছে সন্ত্রাসীরা।
মহামান্য উচ্চতম ন্যায়ালয়ের নিৰ্দেশনা মতে কোনো প্ৰকৃত ভারতীয় নাগরিকের নামে কোনো ব্যক্তি ষড়যন্ত্ৰ মূলক ভাবে এনার্সি কৰ্তৃপক্ষের কাছে ভূয়া আপত্তি দাখিল করলে আপত্তি জমাকারি মিথ্যা প্রমাণিত হলে তার উপর ”নাগরিকত্ব আইন ১৯৫৫’র ধারা-১৭ প্ৰযোজ্য হবে”। নাগরিকত্ব আইনের ধারা ১৭ মতে কোনো ভারতীয় নাগরিকের নাম এনার্সি নিবন্ধন তালিকা থেকে বাতিল করানোর উদ্দেশ্যে কেউ দাবী-আপত্তি জানালে আপত্তিকারীর ৫বছর জেল সাথে ৫০ হাজার টাকা পৰ্য্যন্ত জরিমানা হতে পারে।
তারা হয়ত আপাতত তাদের কাজে সফল হয়ে গেছে এবং আপনাকে আমাকে বিপদে ফেলে দিয়েছে। এগুলি ঠিকবেনা কারন আপনি ভারতীয় ও আপনার বিরোদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। কিন্তু তার জন্য আপনিও বসে থাকলে চলবেনা। যারা আপনাকে বিপদে ফেলতে বেআইনিভাবে আপনার নাগরিকত্বের উপর আপত্তি জানিয়েছে তাদের বিরোদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরাসরি আদালতে মামলা করবেন।
তার জন্য বিভিন্ন জনদরদী আইনজীবী, সেচ্ছাসেবী সংস্থা ও অর্থনৈতিকভাবে সচ্ছলদের কাছে বিনম্র আবেদন আপনারা এই অসহায়দের অস্থিত্বের লড়াইয়ে আগে থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন ও আইনী সাহায্যের জন্য সন্মিলিত ব্যবস্থা গ্রহণে উদ্যোগ নিন। সাথে থাকার প্রত্যয় দিচ্ছি।

বিনীত
রূহুল কুদ্দুস
করিমগঞ্জ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here