লকডাউন চলবে! ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করে জানিয়ে দিলেন মোদী

0
ছবি: সংগৃহীত
তরঙ্গবার্তা, ডিজিটাল ডেস্ক: জাতির উদ্দেশ্য ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী। জেনে নিন কি কি বললেন তিনি।
# করোনা দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের সঙ্গে থাকবে। কিন্তু আমরা এমন চলতে দিতে পারি না যে আমাদের জীবন করোনাকে ঘিরে আবর্তিত হয়। তাই আমরা মাস্ক পরব। পারস্পরিক ২ গজ দূরত্ব রেখে চলব। কিন্তু এগোবও। তাই লকডাউনের চতুর্থ পর্যায় অন্য রকম হবে। অন্য রঙ ও রূপের হবে। তা ১৮ তারিখের আগে ঘোষণা করা হবে।
# পৌনে তিন লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ভারতেও অনেক পরিবার স্বজন হারিয়েছেন। সবার প্রতি সহানুভূতি জানাচ্ছি।
# মানবজাতির কাছে এই সংকট অকল্পনীয়, অভূতপূর্ণ। কিন্তু হারলে চলবে না। আমাদের বাঁচতেও হবে, সামনের দিকে এগোতেও হবে।
# এত বড় বিপদ ভারতের জন্য একটা বার্তা, সুযোগ নিয়ে এসেছে। একটা উদাহরণ দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছে। যখন করোনা সংকট শুরু হল, ভারতে একটাও পিপিই-র উৎপাদন হত না। এন-৯৫ মাস্ক নামমাত্র উৎপাদন হত। কিন্তু ভারতে এখন দিনে ২ লাখ পিপিই, ২ লক্ষ এন-৯৫ মাস্ক তৈরি হচ্ছে।
# বিশেষ আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করতে চলেছি- যা আত্মনির্ভরতার সহায়ক হবে। করোনা  সংকটের মোকাবিলায় যে আর্থিক প্যাকেজ সরকার এর আগে ঘোষণা করেছে, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক যে ঘোষণা করেছে আর আজকের প্যাকেজ জুড়ে দিয়ে তার বহর হবে ২০ লক্ষ কোটি টাকা।যা দেশের গড় জাতীয় উৎপাদনের ১০ শতাংশ
# এই প্যাকেজে জমি, শ্রমিক, অর্থের যোগান ও আইন- সবকিছুর উপর জোর দেওয়া হয়েছে। আমাদের ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি উদ্যোগের জন্যও। যা কয়েক কোটি মানুষের জীবিকা নির্বাহের আধার। এই আর্থিক প্যাকেজ দেশের সেই শ্রমিক ও কৃষকদের জন্য, যারা যে কোনও পরিস্থিতিতে দেশবাসীর জন্য দিনরাত পরিশ্রম করছে। এই আর্থিক প্যাকেজ মধ্যবিত্তদের জন্যও যারা দেশের উন্নয়নে সাহায্য করছে।
# আজ থেকে প্রতিটি ভারতবাসীকে ‘লোকাল’ নিয়ে ‘ভোকাল’ হতে হবে। শুধু স্থানীয় ভাবে উৎপাদিত জিনিস কিনলে হবে না, স্থানীয় উৎপাদনও বাড়াতে হবে। তা যেন বিশ্বমানের হয়। তবেই সেই লোকাল একদিন গ্লোবাল হয়ে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here