ওয়াইফাই, টেলিফোন ব্যবস্থা ও বিশেষ টয়লেট নিয়ে গুহায় ধ্যানে বসেছিলেন মোদী

0
ছবি : ট্যুইটার
তরঙ্গ বার্তা, ডিজিটাল ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শেষ দফার ভোটগ্রহণ শুরুর আগেরদিন কেদারনাথ মন্দিরে ধ্যানে বসেছিলেন। প্রায় ১৮ ঘণ্টার ধ্যান শেষে রবিবার মন্দিরের সেই গুহা থেকে বেরিয়ে এসেছেন। কিন্তু বিরোধী দলগুলো বলছে, ভোটারদের দৃষ্টি কাড়তেই গুহায় ধ্যানে বসেছিলেন মোদী।

উত্তরাখণ্ড রাজ্যের গাড়োয়াল হিমালয় পর্বতশ্রেণিতে অবস্থিত কেদারনাথ শহরে মন্দাকিনী নদীর তীরে স্থাপিত ওই শিব মন্দির। এই মন্দিরের ১০ ফুট বাই ৮ ফুটের গুহায় বসেছিলেন মোদী। ১৮ ঘণ্টা ধ্যানমগ্ন থেকেছেন তিনি। এই দীর্ঘ সময়ে সেই গুহায় তার সঙ্গী হয়েছিল ওয়াইফাই ও টেলিফোন ব্যবস্থা। নিয়ে গিয়েছিলেন বিশেষ টয়লেট ও ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষী।
একটি গণমাধ্যম বলছে, শনিবার কেদারনাথে পূজা সেরে সারারাত ধ্যান করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছবিতে দেখা যায়, শরীরে গেরুয়া কাপড় জড়িয়ে পদ্মাসনে ধ্যানে বসেছেন তিনি। রবিবার সকালের দিকে সেখান থেকে বেরিয়ে উত্তরাখণ্ডের অপর বিখ্যাত মন্দির বদ্রীনাথে পূজা দেন মোদী।
নিউজ আপডেট পান সরাসরি আপনার হোয়্যাটসেপ-এ। আমাদের হোয়্যাটসেপ গ্রূপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন…
বৃহস্পতিবার ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের সপ্তম দফার প্রচার শেষ হয়। এই সময় নরেন্দ্র মোদীকে কেদারনাথ ও বদ্রীনাথ মন্দির দর্শনে অনুমতি দেয় নির্বাচন কমিশন। শনিবার সম্পূর্ণ পাহাড়ি পোশাকে সেজে প্রায় আধা ঘণ্টা ধরে কেদারনাথ মন্দিরে পূজা দেন নরেন্দ্র মোদী। ধ্যান করার পাশাপাশি তিনি মন্দির শহরের উন্নয়নের কাজও খতিয়ে দেখেন।

এদিকে, নির্বাচনের সময় প্রধানমন্ত্রীর কেদারনাথ মন্দিরে ধ্যান এবং উন্নয়নকাজ খতিয়ে দেখায় নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ করেছে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেস।
খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here