উত্তর প্রদেশে সাংবাদিককে পুড়িয়ে হত্যা, দুর্নীতির খবর ছাপার জের

0

উত্তর প্রদেশ
ফটো: সংগৃহীত

যোগী রাজ্য থেকে একের পর এক উঠে আসছে রোমহর্ষক সব হত্যার ঘটনা। ভয়াবহ এই হত্যার ঘটনা গুলো হলিউডের হাড়হিম করা থ্রিলার অ্যাকশন মুভি গুলোকেও হার মানাবে। গো বলয়ের এই রাজ্যে আবারও পুড়িয়ে মারার ঘটনা সামনে, তবে এবার কোনো মেয়ে নয়, এবার এক সাংবাদিককে স্যানিটাইজার ঢেলে পুড়িয়ে মারা হল। তাঁর অপরাধ ছিল দুর্নীতির বিরুদ্ধে কলম ধরা। গ্রাম প্রধানের দুর্নীতির বিরুদ্ধে কলম ধরেছিলেন ওই সাংবাদিক। তার জেরেই চরম শাস্তি পেতে হল সাংবাদিককে। সঙ্গে তাঁর বন্ধুকে ও পুড়িয়ে মারা হয়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে মূল অভিযুক্ত পঞ্চায়েত প্রধানের ছেলেও রয়েছে।

রাষ্ট্রীয় স্বরুপ নামে লখনউয়ের একটি স্থানীয় স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিক রাকেশ সিংহ নির্ভীক (৩৭)। তাঁর বাড়ি বলরামপুরে। শুক্রবার তাঁর বাড়িতে এসেছিলেন তাঁর বন্ধু পিন্টু সাহু (৩৪)। অভিযোগ, ওই দিন স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধানের ছেলেসহ তিনজন রাকেশের বাড়িতে ঢুকে রাকেশ ও পিন্টুর গায়ে স্যানিটাইজার ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় পিন্টুর। রাকেশকে লখনউয়ের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কয়েক ঘণ্টা পর তিনি মারা যান। পুলিশের বক্তব্য, হত্যাকাণ্ডকে দুর্ঘটনা বলে চালানোর চেষ্টা হয়েছিল। তবে বেশ কিছু অসংগতি থাকায় পূর্ব পরিকল্পিত খুন বলেই প্রাথমিক অনুমান পুলিশের।

মত্যুর আগে হাসপাতালের বেডে শুয়ে রাকেশের একটি ভিডিয়ো ছড়িয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতে তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ওই পঞ্চায়েত প্রধান ও তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে প্রায় প্রতিদিনই খবর করছিলেন তিনি। তিনি বলেছিলেন, ‘সত্য ঘটনাকে সামনে আনার এটাই মূল্য।’

বলরামপুরের পুলিশ সুপার দেবরঞ্জন বর্মা বলেন, ‘খুনের ঘটনাকে দুর্ঘটনা বলে চালানোর চেষ্টা করেছিল অভিযুক্তরা। কিন্তু বেশ কিছু অসংগতি থাকায় আমরা বুঝতে পারি, এটা একটা ষড়যন্ত্র। খুনের পিছনে দু’টি উদ্দেশ্য ছিল, আর তা হল, নির্ভীকের সাংবাদিকতা এবং দেনা-পাওনা নিয়ে পিন্টু ও রিঙ্কুর মধ্যে বিবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here