মুসলিম শাসন আমলে কেউ কোনও ‌অমুসলিমকে‌ জোর করে ‌গরুর মাংস খাইয়েছে? প্রশ্ন নায়েমা আনসারীর

0
নায়েমা আনসারী। ছবি : নিজস্ব
নিজস্ব সংবাদদাতা, তরঙ্গ বার্তা, কলকাতা : বিশ্বনাথ চারিয়ালি এলাকায় গোমাংস বিক্রি করার অপরাধে অজ্ঞাত হামলাকারীরা এক মুসলিম বৃদ্ধকে নির্মমভাবে মারধর করেছে। শওকত আলী (৬৮) নামে ওই বৃদ্ধকে জোর করে শূকরের মাংস খাওয়ানোরও অভিযোগ উঠেছে।
শওকত আলীর ভাই সাহাবুদ্দিনের অভিযোগ, শওকত আলীকে ‘বাংলাদেশি’ বলে দাবি করে  তাঁকে বেধড়ক মারধর করাসহ তাঁকে শূকরের মাংস খেতে বাধ্য করা হয়। গত রবিবারের ওই ঘটনার ভিডিও চিত্র বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে ওঠে।
শওকত আলীকে মারধর করার সময় আক্রমণকারীরা তাঁকে ঘিরে ধরে জানতে চায়, শওকত কি বাংলাদেশ থেকে এসেছেন? তাঁর কাছে গোমাংস বিক্রির লাইসেন্স আছে কি? এনআরসিতে তাঁর নাম আছে কিনা তাও জানতে চায় আক্রমণকারী যুবকরা।
ছবি : সংগৃহিত
এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামি পশ্চিমবঙ্গ শাখার মহিলা নেত্রী নায়ীমা আনসারী। তিনি প্রশ্ন করেছেন, ‘ঐ অমানুষগুলো কি প্রমাণ করতে পারবে‌ দীর্ঘ ৮০০/৯০০ বছরের মুসলিম শাসন আমলে মুসলিম শাসকগণ বা মুসলিম প্রজা‌সাধারন কোনো ‌অমুসলিমকে‌ জোর করে ‌গরুর‌‌ মাংস খাইয়েছে?’
তিনি আরও প্রশ্ন করেন, ‘জোর ‌করে কেউ কাউকে মুসলিম বানিয়েছে? অথবা‌ কোনও ‌মন্দির‌ ভেঙে ‌ মসজিদ বানানোর ‌জিগির তুলেছে? বা‌ মুসলিম ‌রাষ্ট্র বানানোর ‌জিগির তুলেছে? কোনও অমুসলিমকে মুসলিম বানানোর জন্য ‌বল‌ প্রয়োগ করেছে? উত্তর আসবে ‌না। তাই ‌যারা ধর্মের নামে মানুষের উপর জুলুম নির্যাতন চালিয় অধর্ম করে তাদের ধিক শতধিক।’
খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here