বিধায়ক কমলাক্ষ দে পুরকায়স্থকে অপবাদ মুক্ত করতে মাঠে আইনজীবী দাইয়ান

0

রুহুল কুদ্দুস: বিধায়ক কমলাক্ষ দে পুরকায়স্থ বাঙালির গর্ব। বরাক উপত্যকার সর্বশ্রেণীর সাধারণ মানুষ জাতি ধর্ম নির্বিশেষে আস্থা রয়েছে বিধায়কের উপর। কথাগুলি একান্ত সাক্ষাৎকারে তরঙ্গ বার্তাকে জানালেন পঞ্চায়েত নির্বাচনে কংগ্রেসের ষ্টার ক্যাম্পেনার অসম প্রদেশ কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক হাইকোর্টের আইনজীবী দাইয়ান হুসেন। তিনি বলেন বাঙালির অস্তিত্ব সংকটের সময় এন আর সি ইস্যুতে যেভাবে বিধায়ক দিল্লি দিসপুর সোচ্চার হয়েছেন, এর জন্য উনি আজ সর্বত্র শ্রদ্ধার পাএ। করিমগঞ্জের মানুষ ভারতীয় দাবি করে তিনি নিজেই সুপ্রিম কোর্টে মামলা লড়ছেন। যার কারনে তার জনপ্রিয়তা অন্য মাত্রা ধারণ করেছে এবং ঘরে বাইরে সব জায়গায় উনি সমাদৃত হয়েছেন । উনার সর্বজন গৃহীত জনপ্রিয়তা দেখে শাসক দল বিশেষ করে বিজেপি এবং এক গোষ্টি ঈর্ষান্বিত হয়ে উঠেছে। বর্তমানে পঞ্চায়েত নির্বাচন। এখানে কোন বিধায়কের নির্বাচন হচ্ছে না কিন্তু দেখা যাচ্ছে যে বিজেপি এবং ইউডিএফ নিজেদের হার নিশ্চিত জেনে কমলাক্ষের পিছনে কুচক্র লাগিয়ে দিয়েছে । যেভাবে বিগত বিধানসভা নির্বাচনে সিদ্দেক আহমেদের জনপ্রিয়তা দেখে সব এক হয়ে গিয়েছিল সেভাবেই আজ কমলাক্ষের ক্ষেত্রে হচ্ছে । দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে যাঁরা আজ নির্দলীয় হয়ে মাঠে নেমেছেন তাঁদের কাছেই বিধায়ক বিগত দশ বছর মধ্যমনি হিসাবে ছিলেন। বিধায়ক কমলাক্ষকে উত্তর করিমগঞ্জের মানুষ ভোট দিয়ে জয়ী করেছেন কোন ব্যক্তি বিশেষে নয় । যার কারনে আজও দিনরাত সাধারণ মানুষের হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন । আজকের দিনে উনার মত জননেতা পাওয়া কঠিন । বিগত দশ বছরে যেভাবে উত্তর করিমগঞ্জের উন্নয়ন হয়েছে তা একমাত্র বিধায়কের দ্বারাই সম্ভব হয়েছে । সবচেয়ে বড় কথা গ্রামের মানুষ কোন দালাল ছাড়া সরাসরি বিধায়কের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেন সেটাই বড় কথা । আজকে যাঁরা টিকিট না পেয়ে নির্দলীয় হয়ে মাঠে নেমে কমলাক্ষের বিরোধিতা করছেন তাঁরা আসলে বিজেপির পরিকল্পিত এজেন্ট। স্বার্থপরের মতো মাঠে নেমে এরা নিজের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য মরিয়া । জনগনের প্রতি এদের কোন দায়বদ্ধতা নেই। যার কারনে কংগ্রেসের বিপর্যয় হয়ে এরা কোমর কষে মাঠে নেমেছে । তবে কংগ্রেস ছাড়া যে গ্রাম গঞ্জের উন্নয়ন সম্ভব নয় তা অনেক আগেই গ্রামের মানুষ বুঝতে পেরেছেন । গত ২০১৬ নির্বাচনে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর কোন ধরনের পঞ্চায়েতে উন্নয়ন মূলক কাজ হয়নি । সাধারণ মানুষ যখন কংগ্রেস মুখী তখন বিরোধী এক গোষ্টি মাঠে নেমে কংগ্রেসের বিরোধিতা করে যাচ্ছে । সব ধরনের দুর্নীতির আশ্রয়ের মূলে কিন্তু বিজেপি । বিগত দিনে কংগ্রেস আমলে যাঁরা দুর্নীতিতে লিপ্ত ছিল আজকে তাঁরাই বিজেপিকে নেতৃত্ব দিচ্ছে । দাইয়ান হুসেনের তরঙ্গ বার্তায় দেয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন পঞ্চায়েতে ভোটের স্বপ্ন দেখতে হলে বিজেপি দলের আগে দরকার বিগত দিনে দুর্নীতিবাজ নেতৃত্ব দের দল থেকে বহিষ্কার করা এবং দুর্নীতিবাজ দের সাহায্য বন্ধ করা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here