দিনদুপুরে বাইক চুরি কালীগঞ্জ বাজারে, এলাকায় চাঞ্চল্য

0
ছবি : প্রতিকী
নিজস্ব সংবাদদাতা, তরঙ্গ বার্তা, কালীগঞ্জ : দিনদুপুরে কালীগঞ্জ বাজার থেকে বাইক চুরির ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে জনগণের মধ্যে। জানা গেছে কালীগঞ্জ বাজারের মসজিদ রোডের বিশিষ্ট বস্ত্র ব্যাবসায়ী জয়নাল আহমেদ নিজের বাইকটি তার ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠানের লাগুয়া শেড ঘরে রেখে যান শুক্রবার দুপুর আনুমানিক বারোটা নাগাদ।
ব্যাবসার কাজ শেষে রাতে ঘরে ফেরার সময় যখন জয়নাল বাইক আনতে যান তখন গিয়ে দেখেন বাইক নিদৃষ্ট জায়গায় নেই। পরে আশপাশ স্থানে খোঁজ করে কোনও লাভ হয়নি।
কালীগঞ্জ বাজারে এরকম চুরির ঘটনা নতুন নয়। স্থানীয় প্রশাসনের উদাসীনতায় দিন দিন কালীগঞ্জ বাজারে চোরের উপদ্রব বাড়ছে। যখন তখন সাধারণ মানুষের পকেটকাটা হচ্ছে, আবার অনেক ব্যাবসায়ীদের ক্যাশ বাক্স থেকে টাকা চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে দুষ্কৃতীরা। আর এসব বেশীরভাগ ঘটেছে সাপ্তাহিক বাজার বারে।

এ নিয়ে কালীগঞ্জ বাজার এলাকার জনগণের মধ্যে ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। এ ছাড়াও কিছুদিন আগে ঘাটাইল গ্রাম থেকে একটি পালসার বাইক চুরি হয়।
এদিকে স্থানীয় প্রশাসনের ইনচার্জ প্রদ্যুৎ নাথের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কালীগঞ্জে পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশ কর্মীর অভাবে এমনটা হচ্ছে। বিশেষ করে আসন্ন লোকসভা ভোটের বাড়তি কর্তব্য পালন করতে গিয়ে বিভিন্ন জায়গায় যেতে হচ্ছে পুলিশদের। আর এই সুযোগে দুষ্কৃতীরা বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হয়েছে।
তবে খুব শীঘ্রই দুষ্কৃতীদেরকে পাকড়াও করা হবে বলে জানান। তাছাড়া তিনি আরও বলেন, কালীগঞ্জ বাজারে অবৈধ ভাবে মদ বিক্রী হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। অবৈধ ভাবে মদ বিক্রী বন্ধ করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর কথায় কালীগঞ্জ বাজারে যে মদ বিক্রী হচ্ছে তা নিদৃষ্ট কোনও দোকানে নয়। কালীগঞ্জ বাজারে মদ বিক্রেতা একটু ব্যাতিক্রমী পন্থায় মদ বিক্রী করছে।
প্রদ্যুৎ নাথের মতে, মদ লুঙ্গির নিচে রেখে বাজারে হেঁটে হেঁটে বিক্রী করছে। এ ধরণের মদ বিক্রেতাকে ধরা খুবই জটিল। তাহলে কি প্রশাসনের উর্ধে ওঠে অবাদে মদ বিক্রী হবে আর প্রশাসন আঙ্গুল চুষবে?খবর রয়েছে যে কালীগঞ্জ বাজারের করিমগঞ্জ রোডে অবৈধ ভাবে মদ বিক্রী করে উঠতি যুবসমাজকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।
খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here