শপথ নিয়েই ৭ মুসলিম দেশের ওপর ট্রাম্পের আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা ওঠালেন বাইডেন

0
ছবিঃ সংগৃহীত

শপথ নিয়েই নির্বাচনের সময় করা প্রতিশ্রুতিগুলির মধ্য থেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রতিশ্রুতি পালন করলেন জো বাইডেন। ট্রাম্পের আনা ৭ মুসলিম দেশের ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা ওঠালেন বাইডেন। এবার ওই ৭ মুসলিম দেশ সহ মোট ১৩ দেশের নাগরিকদের আমেরিকা প্রবেশের ক্ষেত্রে আর কোনো বাধা রইলনা।

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার পরপরই পূর্বসূরী ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘ মুসলিম নিষেধাজ্ঞা’ হিসেবে কথিত ১৩ দেশের নাগরিকদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার আদেশ বাতিল করে   মুসলিম বিশ্ব জয় করতে সক্ষম হলেন ট্রাম্প।

বুধবার হোয়াইট হাউস থেকে এক নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষরের মাধ্যমে ট্রাম্পের ওই আদেশ বাতিল করলেন তিনি।হোয়াইট হাউসের নতুন প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বুধবার সন্ধ্যায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, ‘প্রেসিডেন্ট মুসলিম নিষেধাজ্ঞা বাতিল করেছেন- যে নীতির ভিত্তি ছিল ধর্মীয় বিদ্বেষ ও বর্ণবাদী আচরণ।’

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মুসলিম সংস্থা কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন বাউডেনের এই আদেশকে স্বাগত জানিয়েছে। সংস্থাটির এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর নিহাদ আওয়াদ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এর মাধ্যমে মুসলিম সম্প্রদায় ও মিত্রদের প্রতি নির্বাচনী প্রচারণার গুরুত্বপূর্ণ এক প্রতিজ্ঞার বাস্তবায়ন করা হলো।’

২০১৭ সালে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ওই নির্বাহী আদেশ জারি করেন। ইরান, ইরাক, সিরিয়া, ইয়েমেন, লিবিয়া, সোমালিয়া ও সুদান- এই সাত মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার আদেশের কারণে ওই সময় এই আদেশ ‘মুসলিম নিষেধাজ্ঞা’ নামে পরিচিতি পায়।

পরে নাইজেরিয়া, ইরিত্রিয়া, তানজানিয়া, কিরগিজস্তান, মিয়ানমার ও উত্তর কোরিয়া- এই ছয়টি রাষ্ট্রের নাগরিকদেরকেও ওই আদেশের অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

নিষেধাজ্ঞার ওই আদেশের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় মার্কিন আদালতে অভিযোগ আনা হয়। ২০১৮ সালে মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট ওই আদেশের পক্ষে রায় দেন।

এছাড়া বাইডেন প্রথম দিনেই অফিসে বসে আরো ১৪টি নির্বাহী আদেশে সই করেন।

বাইডেনের এই সিদ্ধান্তের ফলে ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্প প্রশাসন যে একাধিপত্যবাদী নীতি অনুসরণ করছিল তা থেকে বাইডেন প্রশাসন বেরিয়ে আসবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here