সেনাবাহিনী নিয়ে ভিত্তিহীন মন্তব্যের অভিযোগে শেহলা রশিদের বিরুদ্ধে মামলা আইনজীবির

0
ছবি: সংগৃহীত

তরঙ্গবার্তা অনলাইন ডেস্ক: কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর নির্যাতন করার অভিযোগ মিথ্যা ও মনগড়া। তাই সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অলোক শ্রীবাস্তব সেনার ওপর অভিযোগ উত্থাপনকারী জেএনইউ’র প্রাক্তন ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি শেহলা রশিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছেন।

শ্রীবাস্তব ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং ভারত সরকারের বিরুদ্ধে ভুয়ো ও ভিত্তিহীন খবর ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে শেহলা রশিদকে গ্রেপ্তারের দাবিও জানান।

উল্লেখ্য, ইদানিং একের পর এক বিতর্কিত টুইট করছেন শেহলা। গত রবিবার এক টুইটে শেহলা রশিদ লিখেছিলেন, “আমি একজন সাধারণ কাশ্মীরি। আমার মনে হচ্ছে এই মুহূর্তে গ্রেপ্তার হওয়া অনেক ভাল। কিছুদিন আগেই পুলিশের অত্যাচারে ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধ এবং ১৭ বছরের এক বালকের মৃত্যু হয়েছে এখানে। এইভাবে মরার চেয়ে গ্রেপ্তার হওয়া ভাল। ‌সেনাবাহিনী তল্লাশির নাম করে যখন তখন বাড়িতে ঢুকে পড়ছে। ছেলেদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে।”

ভারত সরকার এবং ভারতীয় সেনাবাহিনী নিয়ে একাধিক টুইটে শেহলা রশিদ কাশ্মীরে মানবধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেন।

সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে আরেকটি চাঞ্চল্যকর টুইট করে শেহলা রশিদ বলেছিলেন- “রাতে সেনাবাহিনী কাশ্মিরীদের ঘরে ঢুকছে, ছেলেদের তোলে নিয়ে যাচ্ছে। ঘরবাড়ি লুন্ঠন করছে, খাদ্যদ্রব্য মাটিতে ফেলে দিচ্ছে৷ তেল আর চাল মিশিয়ে একাকার করছে।”

দায়ের করা অভিযোগে শ্রীবাস্তব বলেছিলেন যে রশিদের করা অভিযোগগুলি সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন এবং মনগড়া। অভিযোগে আরও বলা হয়েছে যে রশিদ ভারত সরকারের প্রতি অসন্তুষ্টি জাগিয়ে তোলার লক্ষ্যে এসব করছেন যা ভারতীয় দণ্ডবিধির (আইপিসি) ১২৪-এ এর অধীনে রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধ হিসাবে অভিহিত। শ্রীবাস্তব অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কঠোর অপরাধমূলক ব্যবস্থা নেওয়ারও আহ্বান জানান।

অপরদিকে, জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি সম্পর্কিত শেহলার অভিযোগকে সম্পূর্ণ ‘মিথ্যে ও ভিত্তিহীন বলে ভারতীয় সেনা জানিয়েছে, ‘‌কাশ্মীরের জনসাধারণকে মূলত উস্কে দেওয়ার জন্যই এই ধরণের ভুয়ো এবং প্ররোচনামূলক কথা বলা হচ্ছে।’‌

সেনাবাহিনী শেহলার দাবি অস্বীকার করা সত্ত্বেও শেহলা রশিদ তার বক্তব্যে অনড়। তিনি বলেন, আমার অভিযোগের সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।”

সুত্র- টাইমস অব ইন্ডিয়া, ইন্ডিয়া টুডে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here