অসমের ৮০ লক্ষ মানুষ মদ্যপান করেন, রিপোর্ট

0
তরঙ্গ বার্তা ডেস্ক : রাজ্যর কতো শতাংশ লোক মদ্যপান করেন, এ সংক্রান্ত এক ভয়াবহ রিপোর্ট বেরিয়েছে সম্প্রতি৷ ওই রিপোর্ট অনুযায়ী অসমের মোট জনসংখ্যার ৮.৮ শতাংশই মদ্যপান করেন। অৰ্থাৎ অসমের মোট জনসংখ্যার ২৮ লক্ষ লোক মদ্যপান করে। এর মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ২৪ লক্ষ ও মহিলার সংখ্যা ৪ লক্ষ।
সারাদেশে প্রায় ১৬ কোটি লোক মদ্যপান করেন। দেশর প্রতি একজন মহিলার বিপরীতে ১৭ জন পুরুষ মদ্যপান করেন। রাজ্য ভিত্তিক পর্যালোচনা করলে এই তালিকার শীর্ষে আছে চত্তীশগড় এবং দ্বিতীয় স্থানে আছে ত্ৰিপুরা। এই তালিকায় অষ্টম স্থান দখল করেছে মণিপুর ও তালিকার ২৫ নম্বর স্থানে আছে অসম।
অন্যদিকে সবচেয়ে কম মদ্যপান করা রাজ্যের তালিকার মধ্যে চতুৰ্থ স্থান দখল করেছে মেঘালয়। মণিপুরে ২২.৪ শতাংশ লোক মদ্যপান করে এর বিপরীতে ত্ৰিপুরায় মদ্যপান করে ৩৫.৬ শতাংশ লোক।
অন্যদিকে, নাগালেণ্ডের সৰ্বমোঠ জনসংখ্যার ৮.১ শতাংশ লোক মদ্যপান করে। এবং মিজোরামে পরিসংখ্যা হচ্ছে ৭.৮ শতাংশ। মেঘালয়ে ৩.৪ শতাংশ ।
এর মধ্যে ১২ শতাংশ মদ্যপানকারিরা গ্ৰহণ করে ‘স্ট্রং বিয়ার’, ৯ শতাংশ পান করে ‘লাইট বিয়ার’, অবৈধ মদ পান করে ২ শতাংশ লোকে। ঘরুয়া নিৰ্মিত ছোলাই মদ পান করে ১১ শতাংশ লোক। ওয়াইন পান করে ৪ শতাংশ। দেশে নিৰ্মিত বিদেশী মদ পান করে ৩০ শতাংশ এবং দেশী মদ পান করে ৩০ শতাংশ লোক।
AIIMS-এর National Drug Dependence Treatment Centre কেন্দ্ৰীয় সমাজ কল্যান মন্ত্ৰণালয়ের জন্য প্ৰস্তুত করা প্ৰতিবেদনে প্ৰকাশ পেয়েছে এই তথ্য।
এছাড়াও অসমে ভাং/গাঞ্জা /চরস/সেবনকারিদের সংখ্যা ১ লাখ ৫৬ হাজার জন। সৰ্ব ভারতীয় পৰ্যায়ে প্ৰায় ৩ কোটি ৫০ লক্ষ মানুহে ভাং সেবন করে। ভাং সেবনে উত্তরপূর্বের মধ্যে শীৰ্ষ স্থান দখল করেছে সিকিম।
এসব ছাড়াও ইয়াবা, কুকেইন, হেরইন ও টেবলেট সেবনের শীৰ্ষে আছে উত্তর পূৰ্বের পাঁচটি রাজ্য। শীৰ্ষ স্থানে আছে সিকিম ও তারপর ক্ৰমান্বয়ে অরুণাচল প্ৰদেশ, নাগালেণ্ড, মণিপুর ও মিজোরাম। সমগ্ৰ দেশে ২.২৬ কোটি মানুষ খৈনি খায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here