শিক্ষক দিবসের দিনেই ‘কালো দিবস’ পালন করলেন ত্রিপুরার চাকরিচ্যুত ১০৩২৩ শিক্ষক

0

ত্রিপুরা রাজ্যের চাকরি হারানো ১০৩২৩ জন শিক্ষক বর্তমানে দিশেহারা। তারা জানে না আগামী দিনের ভবিষ্যৎ কি? তাদের দাবি- ১০৩২৩ শিক্ষকদের প্রতি প্রদত্ত প্রতিশ্রুতি গুলো সরকারকে রক্ষা করতে হবে। চাকরিচ্যুত শিক্ষকদের চাকরির স্থায়ী ব্যবস্থা করতে হবে। ১০৩২৩ শিক্ষকদের মধ্যে প্রয়াত শিক্ষক পরিবারে একটি করে সরকারি চাকরি প্রদান করতে হবে। কিন্তু নির্বাচনের প্রাক মুহূর্তে প্রতিশ্রুতি দিলেও এখন তাঁদের দাবিগুলো কর্ণপাত করছে না রাজ্যের বিজেপি সরকার।

এই অবস্থায় চাকরি ফিরে পাওয়ার জন্য তারা নিত্য নতুন কর্মসূচি হাতে নিচ্ছে। এইসব কর্মসূচির অঙ্গ হিসেবে শিক্ষক দিবসের দিনেই ‘কালো দিবস’ পালন করলেন ত্রিপুরার চাকরিচ্যুত ১০৩২৩ শিক্ষক। ৫ সেপ্টেম্বর গোটা দেশ জুড়ে পালিত হচ্ছে শিক্ষক দিবস। কিন্তু আজকের এই দিনটাতেই আগরতলায় কালো দিবস হিসেবে পালন করছেন চাকরিচ্যুত শিক্ষকরা। এদিন ১০৩২৩ জন শিক্ষক হাতে হাতে সরকার বিরোধী নানান প্লেকার্ড নিয়ে আগরতলা প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে রবীন্দ্রভবন পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করলেন। মুখে কালো কাপড় বেঁধে বহিষ্কৃত শিক্ষকরা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তাদের প্রতিবাদ জানালেন। প্রতিবাদে তাঁরা এক মিনিট নীরবতাও পালন করেন।

উল্লেখ্য, গত ৩১ মার্চ সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর ত্রিপুরার ১০,৩২৩ জন শিক্ষককে তাঁদের চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। বহিষ্কৃত শিক্ষকরা সরকারের কাছে বিকল্প আয়ের ব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছেন। ত্রিপুরার বর্তমান বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, মানবতার খাতিরে তারা বরখাস্ত শিক্ষকদের সমস্যার সমাধান করবে। কিন্তু এতদিন হয়ে গেলেও তাদের বিকল্প কর্মসংস্থান করেনি।

আজকের বিক্ষোভ মিছিলে সাংবাদিকদের বহিষ্কৃত শিক্ষকরা বলেন, ” আজকের দিনটা আমাদের শিক্ষকদের জন্য ভীষণ গুরুত্ত্বপূর্ণ একটা দিন। কিন্তু, এই বছর রাজ্যের ১০৩২৩ জন শিক্ষক তাঁদের চাকরি হারিয়েছেন। হারিয়ে গেছে শিক্ষকদের পরিচয় এবং সম্মান।”

শিক্ষকদের আরো অভিযোগ, যখন বহিষ্কৃত এতজন শিক্ষক চাকরি হারিয়ে না খেতে পেয়ে মরছেন তখন ত্রিপুরা সরকার চুপ করে আছে। শিক্ষকদের এই দুর্দশা ঘোচানোর কোনো চেষ্টাও করছে না।

তাই আজকের শিক্ষক দিবসের দিনটা কালো দিবস হিসেবে পালন করতে তাঁরা বাধ্য হয়েছেন। চাকরিচ্যুত শিক্ষকরা সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের উপর ত্রিপুরার বিপ্লব কুমার দেবের সরকারের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন। বিজেপি সরকার যেন তাদের প্রতিশ্রুতি ভুলে না যায়। চাকরি হারানোর পর ১০৩২৩ জন শিক্ষকের পরিবার খুবই দুর্দশায় দিন কাটাচ্ছে। অবিলম্ব তাদের বিকল্প চাকরির ব্যবস্থা করে দেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here